fbpx

জুয়ারিদের কাছে তথ্য পাচার, ৮ বছর নিষিদ্ধ হিথ স্ট্রিক

0

জুয়ারিদের কাছে তথ্য পাচারসহ ৫টি অভিযোগ প্রমানিত হওয়ায় জিম্বাবুয়ের সাবেক অধিনায়ক ও কোচ হিথ স্ট্রিককে আট বছরের জন্য সবরকম ক্রিকেট কর্মকান্ড থেকে বহিষ্কার করেছে আইসিসি। আইসিসির দূর্নীতি দমন বিভাগের কাছে অপরাধ স্বীকার করেছেন হিথ স্ট্রিক।

 

২০১৬ থেকে ২০১৮ সালের মধ্যে জিম্বাবুয়ে এবং অনান্য দলের কোচ থাকার সময় বাজিকরদের তথ্য দেয়াসহ দলীয় বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ খবর পাচারের সুস্পষ্ট অভিযোগ আনা হয়েছে হিথ স্ট্রিকের বিরুদ্ধে।

আইসিসির দেয়া ই-মেইলে বলা হয়েছে, “২০১৮ সালে বাংলাদেশ, জিম্বাবুয়ে এবং শ্রীলঙ্কার মধ্যকার তিন জাতি সিরিজের দল এবং ম্যাচ সম্পর্কিত বিভিন্ন তথ্য পাচার করেছেন যা বাজির উদ্দেশ্যে ব্যবহার করা যেতে পারে” একই বছরের জিম্বাবুয়ে-আফগানিস্তান সিরিজ, আইপিএল এবং এপিএলেও প্রায় একইরকমভাবে তথ্য পাচারের অভিযোগে অভিযুক্ত হিথ স্ট্রিক। স্ট্রিক এসব টুর্নামেন্টে দলের সঙ্গে থাকাকালীন দুর্নীতিবাজদের দুর্নীতি করার সুযোগ করে দিয়েছেন বলে ধারণা করছে আইসিসি। শুরুতে তিনি অভিযোগগুলো নাকচ করলেও পরবর্তীতে দোষ স্বীকার করে নেন।

আইসিসির ই-ইমেইলে আরো বলা হয়েছে, “প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে অনুরোধ, প্ররোচনা দেয়া বা উদ্দেশ্যমূলকভাবে বাজিকরদের সহায়তা করার প্রয়াস ছিলো। এমনকি, তিনি জাতীয় দলের একজন অধিনায়কসহ কমপক্ষে চারজন আলাদা আলাদা খেলোয়াড়ের কাছে ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব দেয়ার চেষ্টা করেছিলেন”

এছাড়া ২০১৭ বিপিএল, ২০১৮ পাকিস্তান সুপার লিগ, ২০১৮ আইপিএল ও এপিএলসহ কয়েকটা আন্তর্জাতিক ম্যাচে দুর্নীতি বা ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব পেয়েও গোপন করা এবং জড়িতদের নাম-ঠিকানা-তথ্য ও পরিচয় দিতেও ব্যর্থ হয়েছেন জিম্বাবুয়ের সাবেক অধিনায়ক। শুধু তাই নয়, তদন্তে দেরী করানোসহ তথ্য নষ্ট করার মতো গুরুতর অভিযোগও প্রমানিত হয়েছে হিথ স্ট্রিকের বিরুদ্ধে।

অপরাধ স্বীকার করে নেওয়া হিথ স্ট্রিক ২০২৯ সালের ২৮ মার্চ আবারো ক্রিকেট সংশ্লিষ্ট কাজে ফিরতে পারবেন।

Share.

About Author

Leave A Reply